সহিংসতা করলে ছেঁকে ছেঁকে ধরা হবে : প্রধানমন্ত্রী

সহিংসতা করলে ছেঁকে ছেঁকে ধরা হবে : প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, রাজনীতি করলে কাউকে বাধা দেওয়া হবে না। তবে, রাজনীতির নামে সহিংসতা করলে ছেঁকে ছেঁকে ধরা হবে।

বৃহস্পতিবার (২০ জুলাই) আখাউড়া-লাকসাম ডাবল রেললাইন নির্মাণ প্রকল্পের ৭২ কিলোমিটার ডুয়েল গেজ রেলপথের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপি সন্ত্রাস ছাড়া আর কিছুই বোঝে না। ভোট পায়নি বলে দেশের মানুষকে নির্বাচনের আগে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে মেরেছিল। এদের হাত থেকে দেশবাসী রক্ষা পাক, সেটাই আমরা চাই। আমরা তাদের রাজনীতিতে বাধা দিচ্ছি না। তবে, রেল ও মানুষের কোনো ক্ষতি করলে আমরা ব্যবস্থা নেব। সব জায়গায় আমাদের সিসি ক্যামেরা থাকবে। একেবারে ছেঁকে ছেঁকে ধরে তাদের শাস্তি দেওয়া হবে।

তিনি বলেন, দেশের উন্নয়ন করতে পারছি। কারণ, জনগণ নৌকায় ভোট দিয়ে সুযোগ দিয়েছিল। জনগণকে বলব, বিএনপি-জামায়াতের হাত থেকে নিজেদের রক্ষা করুন। এরা সৃষ্টি করতে না পারলেও ধ্বংস করতে পারে। এরা মানুষকে কিছু দিতে পারে না, কিন্তু লুটপাট করতে পারে। বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় আসার পর বিশ্বব্যাংকের পরামর্শে লোকসানের কারণে রেললাইন বন্ধ করতে চেয়েছে। রেলের কর্মচারীদের গোল্ডেন হ্যান্ডশেকের মাধ্যমে বিদায়ও দিয়েছিল কিন্তু তাদের পাওনা বুঝিয়ে দেয়নি। ঠিক সে সময় আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসে। আমরা ক্ষমতায় এসে রেল কীভাবে উন্নত করা যায়, সে পদক্ষেপ নেই। পরে আবার দ্বিতীয়বার ২০০৯ সালে এসে আলাদা মন্ত্রণালয় করে দিই। আমি দেখলাম আলাদা মন্ত্রণালয় না করলে রেল উন্নত করতে পারব না। আওয়ামী লীগ ২০১৪-এর নির্বাচনে সরকার গঠন করার পর রেলের ব্যাপক উন্নয়নে হাত দিয়েছিল। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় এসে রেলপথের সুদিন ফিরিয়ে এনেছে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে দেশের যে উন্নয়ন করে বিএনপি ক্ষমতায় ফিরে সেগুলো নষ্ট করে।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, যে যত পরামর্শ দিক, দেশটা আমাদের। এ দেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন আমাদেরই করতে হবে। সেই চিন্তা থেকে আমি দেশ চালাই। কবে কে কী পরামর্শ দিয়েছে সেটা নয়, মানুষের উন্নতি ও সমৃদ্ধির কথা চিন্তা করে আমরা পদক্ষেপ নিই। আমার দেশ, আমার চিন্তা। আমার দেশের মানুষের কীসে মঙ্গল সেটা আমরাই ভালো বুঝি।