এক্সিম ও পদ্মা ব্যাংকের সমঝোতা, একীভূত হলে বিলুপ্ত হবে পদ্মা

একীভূত হতে এক্সিম ব্যাংকের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেছে চতুর্থ প্রজন্মের পদ্মা ব্যাংক। একীভূত হওয়ার পর পদ্মা ব্যাংকের বিলুপ্ত ঘটবে। এটি এক্সিম ব্যাংক নামেই কার্যক্রম পরিচালনা করবে।

আজ সোমবার (১৮ মার্চ) সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেন এক্সিম ব্যাংকের এমডি ফিরোজ হোসেন ও পদ্মা ব্যাংকের এমডি তারেক রিয়াজ খান। চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আব্দুর রউফ তালুকদার, এক্সিম ব্যাংকের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মজুমদার, পদ্মা ব্যাংকের চেয়ারম্যান আফজাল করিমসহ তিন প্রতিষ্ঠানের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র মো. মেজবাউল হক বলেন, ‘ব্যাংক দুটি একীভূত হতে চুক্তি করেছে। এখন একীভূত হতে তারা আবেদন করবে। তাদের প্রস্তাব অনুমোদিত হলে নিরীক্ষা করবে বাংলাদেশ ব্যাংক। সব ঠিক থাকলে একীভূত হওয়ার অনুমোদন দেওয়া হবে।’ তিনি আরও বলেন, নতুন একটি ব্যাংক চালুর অনুমতি দেওয়া হলে তখন বিলুপ্ত হবে পদ্মা ব্যাংক। তার আগ পর্যন্ত ব্যাংক দুটি স্বাভাবিক নিয়মে চলবে।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) পদ্মা ব্যাংকের সঙ্গে একীভূত হওয়ার বিষয়ে এক্সিম ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের সভায় সিদ্ধান্ত হয়। সেদিন একই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয় পদ্মা ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্যাংকের ‘ব্যাংক হেলথ ইনডেক্স অ্যান্ড হিট ম্যাপ’ শীর্ষক এক প্রতিবেদনে দেশের ৩৮টি ব্যাংককে দুর্বল ব্যাংক হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। এর মধ্যে ৯টি ব্যাংক রেড জোনে আছে। আর ইয়েলো জোনে আছে ২৯টি। প্রতিবেদনে, পদ্মা ব্যাংক রেড জোনে এবং এক্সিম ব্যাংক ইয়েলো জোনে আছে। ২০২৩ সালের জুন থেকে অর্ধবার্ষিক আর্থিক কর্মক্ষমতার ভিত্তিতে অভ্যন্তরীণ ব্যবহারের জন্য ব্যাংকের স্বাস্থ্য সূচক তৈরি করে বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক স্থিতিশীলতা বিভাগ।