বাংলাদেশকে ২৫৬ রানের লক্ষ্য দিলো শ্রীলঙ্কা

দুই ওপেনারের ব্যাটে উড়ন্ত শুরু পেয়েছিল শ্রীলঙ্কা। তবে তানজিম সাকিব আক্রমণে এসে লঙ্কানদের লাগাম টেনে ধরেন। নিজের প্রথম ৪ ওভারে ৩ উইকেট শিকার বাংলাদেশকে ম্যাচে ফেরান এই ডানহাতি পেসার। এরপর দল নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারালেও কুশল মেন্ডিস-জানিথ লিয়ানাগে দারুণ ব্যাটিং করেছেন। এই দুইজনের ফিফটিতে আড়াইশো ছাড়ানো সংগ্রহ পেয়েছে সফরকারীরা।

বুধবার (১৩ মার্চ) চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টস জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে ৪৮ দশমিক ৫ ওভারে সবকটি উইকেট হারিয়ে ২৫৫ রান সংগ্রহ করেছে শ্রীলঙ্কা। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৬৭ রান এসেছে লিয়ানাগের ব্যাট থেকে। বাংলাদেশের হয়ে ৩টি করে উইকেট পেয়েছেন তানজিম সাকিব, শরিফুল ইসলাম ও তাসকিন আহমেদ।

নতুন বলে শুরুটা মোটেও ভালো হয়নি বাংলাদেশের। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে বোলিংয়ে এসে লাগামছাড়া বোলিং করেছেন তাসকিন আহমেদ। এই পেসারের একই ওভারে দুই বাউন্ডারি হাঁকায়ে হাত-খুলে খেলা শুরু করে লঙ্কানরা। এরপর শরিফুল ইসলামের ওপরও চড়াও হয়েছেন পাথুম নিশাঙ্কা-আভিষ্কা ফার্নান্দো।

উদ্বোধনী জুটিতে তাসকিন-শরিফুলের এমন ধারহীন বোলিংয়ে ৮ম ওভারেই বোলিংয়ে পরিবর্তন আনেন নাজমুল হোসেন শান্ত। তানজিম সাকিব আক্রমণে এসে নিজের প্রথম ওভারে সুবিধা করতে পারেননি। তবে পরের ওভারেই ব্রেকথ্রু এনে দিয়েছেন এই তরুণ পেসার।

ইনিংসের দশম ওভারের পঞ্চম বলটি অফ স্টাম্পের খানিকটা বাইরে গুড লেংথে করেছিলেন সাকিব। সেখানে জায়গায় দাঁড়িয়ে শট খেলতে গিয়ে উইকেটের পেছনে ধরা পড়েন আভিষ্কা। ৩৩ বলে ৩৩ রান করে এই ওপেনার সাজঘরে ফেরায় ভাঙে ৭১ রানের উদ্বোধনী জুটি।

সাকিবের তৃতীয় ওভারে সাজঘরে ফিরেছেন আরেক ওপেনার নিশাঙ্কা। ১২তম ওভারের প্রথম বলটি খাটো লেংথে করেছিলেন এই পেসার। সেখানে ঘুরে দাঁড়িয়ে স্কয়ার লেগের উপর দিয়ে পুল করতে চেয়েছিলেন নিশাঙ্কা কিন্তু টাইমিং হয়নি। এই ওপেনারের ব্যাটের কানায় লেগে বল চলে যায় গালিতে। সহজ ক্যাচ লুফে নেন সৌম্য সরকার। সাজঘরে ফেরার আগে নিশাঙ্কার ব্যাট থেকে এসেছে ২৮ বলে ৩৬ রান।

দুর্দান্ত শুরু করা লঙ্কানদের লাগাম টেনে ধরেন সাকিব একাই। ব্যক্তিগত চতুর্থ ওভারেও উইকেটের দেখা পেয়েছেন এই পেসার। ইনিংসের ১৪তম ওভারের প্রথম বলটি অফ স্টাম্পের ওপর ফুল লেংথে করেছিলেন। সেখানে ড্রাইভ করতে চেয়েছিলেন সাদিরা সামারাবিক্রমা, এজড হয়ে বল চলে যায় উইকেটের পেছনে। গ্লাভস হাতে দুর্দান্ত ক্যাচ নেন মুশফিকুর রহিম। ৩ রানের বেশি করতে পারেননি সামারাবিক্রমা। টানা ৩ ওভারে ৩ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশকে ম্যাচে ফেরান সাকিব।

দ্রুত সময়ের মধ্যে ৩ উইকেট হারানোর পর আসালাঙ্কাকে সঙ্গে নিয়ে জুটি গড়ার চেষ্টা করেন কুশল মেন্ডিস। দুজনেই দেখে-শুনে খেলছিলেন। তবে আসালঙ্কাকে বেশি দূর এগোতে দেননি মেহেদি হাসান মিরাজ। ২৬তম ওভারে দ্বিতীয় বলে এই অফ স্পিনারের ফ্লাইট মিস করে বোল্ড হয়েছেন আসালঙ্কা। ১৮ রান করে আসালঙ্কা ফেরায় ভেঙেছে ৪৪ রানের পঞ্চম উইকেট জুটি।

তিনে নেমে আরও একবার দলের হাল ধরেন মেন্ডিস। এই টপ অর্ডার ব্যাটার এক প্রান্ত আগলে রেখে ব্যাটিং করছিলেন। ৬৭ বলে তোলে নেন তার ব্যক্তিগত ফিফটি। তবে এরপর আর খুব বেশিদূর এগোতে পারলেন না। ইনিংসের ৩৭তম ওভারে তাসকিন আহমেদকে টেনে মারতে গিয়ে মিড অনে শান্তর হাতে ধরা পড়েন মেন্ডিস। সাজঘরে ফেরার আগে তার ব্যাট থেকে এসেছে ৭৫ বলে ৫৯ রান।

সাতে নেমে আক্রমণাত্মক শুরু করেছিলেন ভানিন্দু হাসারাঙ্গা। তবে ইনিংস বড় করতে পারেননি। ১৪ বলে করেছেন ১৩ রান। এরপর শেষের দিকের ব্যাটাররাও দ্রুত ফিরেছেন। তাতে ২৫৫ রানেই থেমেছে শ্রীলঙ্কা।