সাকিব ও বাংলাদেশের জন্য এটা অসম্মানজনক : ম্যাথিউস

বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচের জয়-পরাজয় ছাপিয়ে আলোচনায় অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউসের ‘টাইমড আউট’। সাধারণত যে কোনো ম্যাচের পারফর্ম করা ক্রিকেটারকে পাঠানো হয় ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে। তবে, গতকাল শ্রীলঙ্কার হয়ে সংবাদমাধ্যমে হাজির হন বিতর্কিত আউট হওয়া ম্যাথিউস।

লঙ্কান তারকা যখন সংবাদ সম্মেলনে এলেন, মনে হল রাগে ফুঁসছিলেন। তখনই ধারণা করা গিয়েছিল, ‘টাইমড আউট’ হওয়া নিয়ে নিজের ক্ষোভ উগরে দিতেই সংবাদ সম্মেলনে আসা ম্যাথিউসের। সংবাদ সম্মেলনে তাকে প্রশ্নটাও করা হয় ওই ইস্যুতে। জবাবে, নিজের হতাশা উগরে দিলেন এই লঙ্কান ক্রিকেটার। ম্যাথিউস জানালেন তিনি কোনো ভুল করেননি। তার ভাষায়, “আমি কোনো ভুল করিনি। ক্রিজে গিয়ে প্রস্তুত হওয়ার জন্য দুই মিনিট সময় থাকে, যেটা আমি করেছি। এটা ছিল একটা ‘ইকুয়েপমেন্ট ম্যালফাঙ্কশন।’ আমি জানি না, ‘কমন সেন্স’ ব্যাপারটি কোথায় গেল। কারণ, এটা অবশ্যই সাকিব ও বাংলাদেশের জন্য অসম্মানজনক। তারা যদি এভাবে ক্রিকেট খেলতে চায় ও এই পর্যায়ে নামতে চায়, তাহলে ভয়ঙ্কর কোনো ভুল হচ্ছে।”

ম্যাথিউসের দাবি, দুই মিনিটের আগেই তিনি প্রস্তুত ছিলেন। তিনি বলেন, ‘আমি যদি দেরি করতাম ও দুই মিনিটের মধ্যে না যেতাম, আইনে আছে দুই মিনিটের মধ্যে যেতে হবে, আমি সেখানে গেছি দুই (এক) মিনিট ৪৫ বা ৫০ সেকেন্ডে। এরপর আমার হেলমেটে সমস্যা দেখা দেয়। তখনও আমার হাতে ৫ সেকেন্ড সময় ছিল। আম্পায়াররাও আমাদের কোচদেরকে বলেছেন যে, হেলমেটে সমস্যা হওয়ার ব্যাপারটি তারা খেয়াল করেননি। আমি তো স্রেফ হেলমেট চাচ্ছিলাম! এখানে পুরোটাই তাই ‘কমন সেন্সের’ ব্যাপার। আমি তো মানকাডিং বা অবস্ট্রাক্টিং দা ফিল্ড নিয়ে বলছি না। এটা নিখাদ কমন সেন্সের ব্যাপার এবং খেলাটাকে অসম্মান করার ব্যাপার। এটা পুরোপুরি অমর্যাদাকর।’

গতকাল সোমবার লঙ্কান ইনিংসের ২৫তম ওভারের দ্বিতীয় বলে সাদিরা সামারাবিক্রমা যখন সাকিবের বলে ক্যাচ দিয়ে আউট হন, তার খানিকের মধ্যেই মাঠে প্রবেশ করেন ম্যাথিউস। যদিও বল মোকাবিলা করতে বেশ কিছুটা সময় নিয়ে নেন তিনি। তার আনা হেলমেটের স্ট্র্যাপে সমস্যা ছিল, সেটা বদলাতে থাকেন। যখন বল মোকাবিলা করতে তৈরি হন, তখন টাইমড আউটের আবেদন করে বসেন সাকিব। ফিল্ডিং অধিনায়ক ছাড় না দেওয়ায় আম্পায়ার মারাইস ইরাসমাসকে টাইমড আউটের ঘোষণা দিতে হয়। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট প্রথমবার দেখে এমন আউট।