সামান্থার সঙ্গে প্রতারণা!

দীর্ঘদিন ধরেই পেশীর প্রদাহজনিত রোগ মায়োসাইটিসের সঙ্গে লড়াই করছেন দক্ষিণী অভিনেত্রী সামান্থা। গত বছর চিকিৎসার জন্য আমেরিকাতেও পাড়ি দিয়েছিলেন তিনি। কিছুটা সুস্থ হওয়ার পর কাজেও মনোযোগী হয়েছিলেন এই অভিনেত্রী। বলিউডে পা রেখেই সামান্থা কাজ করেছিলেন ‘দ্য ফ্যামিলি ম্যান’-এর মতো জনপ্রিয় সিরিজে। শুধু তাই নয়, আন্তর্জাতিক সিরিজ ‘সিটাডেল’-এও এরইমধ্যে কাজ করেছেন সামান্থা।

তবে কিছুদিন আগে শারীরিক অবস্থা খারাপের দিকে যাওয়ায় অভিনয় থেকে সাময়িক বিরতি নেন তিনি। এমনকি কিছুদিন আগে ভারতীয় গণমাধ্যম প্রকাশ করেছিল, বিরল এই রোগের চিকিৎসা খরচ সামলাতেও নাকি হিমশিম খাচ্ছেন এই তারকা। যে কারণে প্রিয় বন্ধুর সাহায্যও নিচ্ছেন।

এমন দুঃসময়ে আবারও নতুন সমস্যায় পড়লেন সামান্থা। এবার প্রতারণার শিকার হয়েছেন তিনি। ভারতীয় একাধিক গণমাধ্যম প্রকাশ করেছে, সামান্থার সঙ্গে প্রায় ১ কোটি টাকার প্রতারণা করেছেন তার ম্যানেজার।

জানা গেছে, গত এক দশক ধরে অভিযুক্ত ম্যানেজারের সঙ্গে কাজ করছেন সামান্থা। এই ম্যানেজারের সঙ্গে জুটি বেঁধে তামিল, তেলুগু থেকে শুরু করে বলিউডেও নিজেকে প্রতিষ্ঠা করতে পেরেছেন তিনি। তাই ম্যানেজারের ওপর অগাধ ভরসা ছিল তার।

সম্প্রতি নিজের পরবর্তী ছবি ‘খুশি’র প্রচারমূলক অনুষ্ঠানের জন্য হায়দ্রাবাদে ফিরেছিলেন সামান্থা। তখনই নাকি তাকে সাবধান করেন অনেকে। কিন্তু ১০ বছরের সম্পর্ক ভাঙতে চাননি এই অভিনেত্রী। এবার তারই মাশুল গুনতে হলো তাকে। এমনিতেই মায়োসাইটিসের চিকিত্সার জন্য ১ বছরের বিরতি নিয়েছেন। তার ওপর চিকিত্সায় বিপুল অঙ্কের টাকাও খরচ হচ্ছে। এমন সময় কোটি টাকার ক্ষতির ফলে বেশ চটে গিয়েছেন তিনি।

যদিও সেই ম্যানেজারকে বহিষ্কার করে নতুন ম্যানেজারের খোঁজ করছেন সামান্থা। তবে ম্যানেজারের প্রতারণার শিকার শুধু সামান্থার কপালেই জোটেনি।

এর আগে একই রকম ঘটনা ঘটেছিল অভিনেত্রী রেশমিকা মান্দনার সঙ্গেও। প্রায় ৮০ লক্ষ টাকার প্রতারণার কবলে পড়েছিলেন তিনি। তারপরই ম্যানেজার বদল করেন রেশমিকা।