শেষ ধাপে ইউপি নির্বাচন: নিহত এক, ছয় কেন্দ্র স্থগিত

এটিএন বাংলা ডেস্ক:

সারা দেশে থেকে মোটামোটি শান্তিপূর্ন ভোটগ্রহণের খবর পাওয়া গেছে। তবে ফেনীর সোনাগাজী উপজেলায় সন্ত্রাসীদের হামলায় একজন নিহত হয়েছেন। কয়েকটি ইউনিয়নে সংঘর্ষ হয়েছে।

ফেনীর চরচান্দিয়া ইউনিয়নের চরভৈরব হাজী তোফায়েল আহমেদ স্কুল কেন্দ্রে সন্ত্রাসী হামলায় মারা গেছেন এক যুবক। সকালে একদল সন্ত্রাসী গুলি ও হাতবোমা ছুঁড়তে ছুঁড়তে কেন্দ্রে ঢুকতে চায়। এসময় মারা যায় ছেলেটি। আহত হন দুই সহাকারি প্রিজাইডিং অফিসার, একজন নারী পোলিং অফিসার, পুলিশ ও আনসার সদস্যসহ ১০ জন। ২টি ব্যালট বাক্স ছিনতাই করে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

চট্টগ্রামের আনোয়ারা পারকি বেড়ীবাঁধ এলাকার দারুশ সুন্নাহ মাদ্রাসা কেন্দ্রে বিএনপির সমর্থিত প্রার্থীরা জাল ভোট দেয়ার সময় ২ চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়। এতে আহত হন ২০ জন। কয়েকটি বাড়িতে আগুন দেয়া হয়।

এছাড়া জেলার সাতকানিয়ায় কাঞ্চনাই ইউনিয়নে, প্রতিপক্ষের গুলিতে আহত হয়েছে আওয়ামী লীগ প্রার্থী রমজান আলী। কিশোরগঞ্জের ইটনা উপজেলার জয়সিদ্ধি ইউনিয়নে বহিরাগত সন্ত্রসীরা কেন্দ্র দখলের চেষ্টা করলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে।

যশোরের শার্শার মহিষা কেন্দ্রে সন্ত্রাসীদের বোমায় একজন আহত হন। অন্যদিকে নোয়াখালীর নেয়াজপুরেরে ভেলানগর মোহাম্মদিয়া এবতেদায়ী মাদ্রাসা কেন্দ্রে দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে ৩জন গুলিবিদ্ধসহ আহত হন ১১ জন। নানা অভিযোগে জেলার ১০ ইউনিয়নের ৬টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ বন্ধ করা হয়েছে।