রাশিয়ার গ্যাস বন্ধ হলে ভয়াবহ সঙ্কটে পড়বে জার্মানি

রাশিয়ার গ্যাস বন্ধ হলে ভয়াবহ সঙ্কটে পড়বে জার্মানি
জার্মানি ‘অপ্রত্যাশিত পরিণতির শৃঙ্খল প্রতিক্রিয়া’ এর মুখোমুখি হবে যদি রাশিয়া সম্পূর্ণভাবে গ্যাস বন্ধ করে দেয়। দেশটির অন্যতম বড় ঋণদাতা কমার্জ ব্যাঙ্ক এ হুঁশিয়ারি দিয়েছে। এদিকে, চ্যান্সেলর ওলাফ শলৎজ বলেছেন যে, প্রযুক্তিগত সমস্যার কারণে জ্বালানি প্রবাহ কমে গেছে বলে মস্কোর করা দাবী যুক্তিসঙ্গত নয়।

কমার্জব্যাঙ্ক সতর্ক করেছে যে, গ্যাস প্রবাহ বন্ধ হলে রাসায়নিক সহ মৌলিক শিল্পগুলি ব্যাহত হতে পারে, যা অর্থনীতির বাকি অংশের জন্য অপ্রত্যাশিত প্রভাব ফেলতে পারে। মস্কো যদি সরবরাহ সম্পূর্ণভাবে স্থগিত করে, ‘জার্মান অর্থনীতি সম্ভবত ২০০৯ সালে আর্থিক সঙ্কটের পরে ঘটেছিল এমন একটি গুরুতর মন্দার মধ্যে নিমজ্জিত হবে,’ ঋণদাতা তার অর্ধ-বার্ষিক প্রতিবেদনে বলেছে।

এমনকি গ্যাস প্রবাহ সম্পূর্ণ বন্ধ না হলেও সঙ্কট কাটবে না। ‘বর্তমানে উন্নত প্রাকৃতিক গ্যাসের মজুদ আসন্ন শীতের জন্য এখনও অপর্যাপ্ত হতে পারে, ফলে প্রাসঙ্গিক শিল্পগুলোর জন্য প্রাকৃতিক গ্যাসের রেশনিং করা প্রয়োজন হতে পারে। এর ফলে উৎপাদন কমে যেতে পারে, যা অর্থনীতিকে ক্ষতিগ্রস্থ করবে,’ ব্যাংক বলেছে।

রাশিয়া নর্ড স্ট্রিম ১ সরবরাহকারী পাইপলাইনের মাধ্যমে জার্মানিকে গ্যাস সরবরাহ কমিয়ে দিয়েছে। ক্রেমলিন ত্রুটিপূর্ণ অংশগুলিকে দোষারোপ করে জানিয়েছে, ২০ শতাংশ ক্ষমতায় প্রবাহ চলছে। মস্কো বলেছে যে, নিষেধাজ্ঞাগুলি সমস্যার সমাধান করতে বাধা দিয়েছে। এ বিষয়ে চ্যান্সেলর শলৎজ বুধবার বলেছিলেন যে, পাইপলাইনের মাধ্যমে সরবরাহ সীমাবদ্ধ করার জন্য রাশিয়ার পক্ষে কোনও প্রযুক্তিগত কারণ নেই।

গ্রীষ্মে সরবরাহের অভাব মানে জার্মানি শীতের জন্য পর্যাপ্ত গ্যাস মজুদ করতে লড়াই করবে যখন চাহিদা বেশি হবে। এটি শিল্পের ঘাটতি, চীনের লকডাউন এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ক্রমবর্ধমান সুদের হার সহ অন্যান্য বৈশ্বিক চাপের শীর্ষে আসে।

সূত্র: দ্য টেলিগ্রাফ।