ভারতীয় বিমান ঘাঁটিতে জঙ্গি হামলায় নিহত ৭

আন্তর্জাতিক

এটিএন বাংলা ডেস্ক: বছরের শুরুতেই জঙ্গি হামলায় কেঁপে উঠল ভারতের পাঞ্জাব রাজ্য।

শনিবার স্থানীয় সময় ভোর সাড়ে ৩টার দিকে, সেখানকার পাঠানকট বিমান বাহিনীর ঘাঁটিতে হামলা চালায় অন্তত ৬ জঙ্গি। নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে প্রায় ৫ ঘন্টার গোলাগুলিতে, নিরাপত্তা বাহিনীর ৩ সদস্য ও ৪ হামলাকারী জঙ্গি নিহত হয়েছে।

এদিকে আজ দুপুরে ঘাটির ভিতরে অভিযান চালালে, নতুন করে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। পুলিশের ধারণা, জঙ্গিদের কেউ ঘাটির মধ্যে লুকিয়ে থাকতে পারে। ওই সন্দেহভাজনদের ধরতে নতুন করে অভিযান চালানো হয়।

পাকিস্তান সীমান্ত থেকে এই বিমান ঘাঁটিটির দূরত্ব মাত্র ৫০ কিলোমিটার।

ভারতের সংবাদ মাধ্যমগুলো জানাচ্ছে, শনিবার স্থানীয় সময় ভোর সাড়ে ৩টার দিকে, জঙ্গিরা একে ফোরটি সেভেন রাইফেলের গুলি ছুড়তে ছুড়তে বিমান ঘাঁটিতে ঢুকে পড়ে। তাদের সংখ্যা ছিল ৬ জন।

যে গাড়িটি হামলাকারীরা ব্যবহার করেছে, সেটি কদিন আগে পুলিশের কাছ থেকে হাইজ্যাক করা হয়েছিল বলেও জানা গেছে। হামলার সময় সন্ত্রাসীদের গায়ে ছিল সামরিক বাহিনীর পোশাক।

ধারণা করা হচ্ছে, হামলাকারীরা জঙ্গি সংগঠন জয়শ-ই-মোহাম্মদের সদস্য। পাথানকটে ওই এয়ার বেজটিতে মিগ টুয়েন্টি নাইন যুদ্ধবিমান ও সামরিক হ্যালিকপ্টার রাখা হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, ঘাঁটির যে অংশে যুদ্ধবিমান রাখা ছিলো, সে দিক দিয়েই হামলা শুরু করে জঙ্গিরা। ওইসময় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে জঙ্গিদের প্রায় ৫ ঘন্টা ধরে গোলাগুলি চলে।

এতে হামলাকারী চার জঙ্গি, ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। জঙ্গিদের প্রতিহত করার লড়াইয়ে, প্রাণ দিতে হয় নিরাপত্তা বাহিনীর তিন সদস্যকেও। তবে ঘাঁটিতে থাকা যুদ্ধবিমান ও সামরিক হ্যালিকপ্টারের কোনো ক্ষতি হয়নি বলে জানায় কতৃপক্ষ।

এ ঘটনায় ভারতের ন্যাশনাল সিকিউরিটি গার্ড- এনএসজিকে ডাকা হয়েছে। কঠিন নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলা হয়েছে পুরো পাঞ্জাবজুড়েই।