বিশেষ নাটক ‘দিগন্তের শেষ প্রান্তে’

গ্যালারী নিউজ হাইলাইট

এটিএন বাংলা ডেস্ক:

এটিএন বাংলায় ২২ সেপ্টেম্বর রাত ১০টা ৫৫মিনিটে প্রচার হবে বিশেষ নাটক ‘দিগন্তের শেষ প্রান্তে’। আহসান আলমগীরের রচনায় নাটকটি পরিচালনা করেছেন দেবাশীষ বড়–য়া দীপ। নাটকটিতে অভিনয় করেছেন অহনা, তানভীর, নুসরাত, ডায়না প্রমুখ।

চারু হাইওয়েতে এসে সুইসাইট করার জন্য অপেক্ষা করছে। সুইসাইট করা ছাড়া যে তার কোন মুক্তি নাই। তার হাজবেন্ড তার চাইতেও দ্বিগুন বয়সের একজন বিপতœীক পুরুষ। নেশাগ্রস্থ স্বামীর অত্যাচার সহ্য করা তার পক্ষে আর কোন ভাবেই সম্ভব হচ্ছেনা। তার ফ্যামিলিরতে এই সব বলতে বলতে অসহ্য হয়ে গেছে। ইদানিং সবাই উল্টো তার দোষ দিচ্ছে। তাই পৃথিবীতে বেঁচে থাকা তার কাছে অর্থহীন মনে হচ্ছে, সো সুইসাইট।
একটা প্রাইভেট গাড়িতে ঝাঁপিয়ে পড়ে চারু। গাড়িটি ড্রাইভ করছিলো নিউরো স্পেশালিষ্ট ডাঃ মোনা। চারু মারা যায়নি। ডাঃ মোনা কিছুদিন তাকে নিজের কর্মস্থল হসপিটালে টিটমেন্ট করিয়ে আজ বাসায় নিয়ে এসেছে। বাসায় এনে রাখাটা চারুর টিটমেন্টেরই অংশ। চারুর মেমোরী লস হয়েছে। তার দীর্ঘ মেয়াদী নিউরো টিটমেন্ট দরকার।

ডাঃ মোনার হাজবেন্ড উৎসব একজন তরুণ স্থপতি। একটি রিয়েল এষ্টেট কোম্পানীতে সে কনসালটেন্ট হিসাবে কাজ করে। সন্ধায় চায়ের টেবিলে উৎসবের সাথে চারুর পরিচয় করিয়ে দেয় মোনা, চারুকে দেখে উৎসব কিংকর্তব্যবিমূঢ় ! এতো সেই চারু যার সাথে উৎসবের কাবিন হওয়ার পর পারিবারিক মনোমালিন্যের জের ধরে উৎসব বিয়ে ভেঙ্গে দিয়েছিলো। উৎসব চারুকে চেনার পরও মোনার কাছে বিষয়টি চেপে যায়।
মোনার ডিউটি টাইমের ফাঁকে উৎসব বাসায় আসে, চারুও যে উৎসবকে চিনতে পেরেছে, কথার প্রসঙ্গে সেটি বেরিয়ে আসে। উৎসব স্তম্ভিত, তবে কি চারুর ম্যামোরী লসের বিষয়টি ভান ?