বিচারক অপসারণের ক্ষমতা সংসদকে দেয়া ‘অবৈধ’

বাংলাদেশ

এটিএন বাংলা ডেস্ক: বিচারপতিদের অপসারণের ক্ষমতা সংসদের হাতে দিয়ে করা সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী অবৈধ ঘোষণা করেছেন হাইকোর্ট। বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত রুলের নিষ্পত্তি করে হাইকোর্টের তিন সদস্যের বেঞ্চ সংগরিষ্ঠতার ভিত্তিতে এই আদেশ দেয়। আদেশে হাইকোর্ট বলে এরকম আইনে বিচার বিভাগের স্বাধীনতা খর্ব হয় এবং আইনের অপব্যবহারের আশংকা থাকে।

রায়ের পর্যবেক্ষণে আদালত বলেছে, সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিদের অপসারণের ক্ষমতা সংসদ সদস্যদের হাতে দিয়ে সংবিধানের সংশোধনী একটি বড় ধরণের দুর্ঘটনা।
২০১৪ সালের ১৭ সপ্টেম্বর জাতীয় সংসদে সংবিধানের ১৬ তম সংশোধনী আনা হয়। বিচারপতিদের অপসারনে সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল বাতিল করে সংবিধানের ৯৬ অনুচ্ছেদে যুক্ত করা বিচারপতিদের অপসারনের সিদ্ধান্ত নেবে সংসদ, সিদ্ধান্ত হবে একটি নিরপেক্ষ তদন্ত কমিটির সিদ্ধান্তের আলোকে।

ওই সংশোধনী পাশের পরপরই সুপ্রিমকোর্টের ৯ আইনজীবী একটি রিট দায়ের করে। রিটের শুনানিতে রাষ্ট্রপক্ষ ও রিটকারীরা ছাড়াও অ্যামিকাস কিউরি হিসেবে চারজন সিনিয়র আইনজীবী এ বিষয়ে বিশেষজ্ঞ মতামত দেন।

বৃহস্পতিবার বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী, বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি মো. আশারাফুল কামালের বেঞ্চ সংখ্যাগরিষ্ঠের ভিত্তিতে সংবিধানের ১৬ তম সংশোধনী অবৈধ ঘোষণা করেন।
তবে, আদালতের এ রায়ে সংক্ষুব্ধ রাষ্ট্রপক্ষ। অ্যাটর্নি জেনারেল জানিয়েছেন রোববার তাঁরা আপিল করে রায়ের স্থগিতাদেশ চাইবেন।

এদিকে সংশোধনী মোটেও অবৈধ নয় বলে মন্তব্য করেছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। মূল সংবিধানের কোনো ধারা অবৈধ বলতে পারেন না আদালত, এই তথ্য দিয়ে সংসদে আইনমন্ত্রী আরো বলেন, আগামী রোববার কিংবা সোমবার এ রায়ের বিরুদ্ধে আপলি করা হবে।

অন্যদিকে, ষোড়শ সংশোধনীর মাধ্যমে বিচারকদের অপসারণের ক্ষমতার বিষয়টি আপিলের রায়ের মাধ্যমে চূড়ান্ত নিষ্পত্তি হবে বলে মনে করেন সাবেক আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ।