ধারাবাহিক নাটক ‘রাজু-৪২০’

এটিএন বাংলা ডেস্ক:

এটিএন বাংলায় আজ (৩০ জানুয়ারি) রাত ১০টা ৫৫মিনিটে প্রচারিত হবে দীর্ঘ ধারাবাহিক নাটক ‘রাজু ৪২০’। জাকির হোসেন উজ্জলের রচনায় ধারাবাহিকটি পরিচালনা করেছেন জাহিদ হাসান। ধারাবাহিকটিতে অভিনয় করেছেন অর্ষা, তারেক স্বপন, রাশেদ মামুন অপু, আলী রাজ, শবনম পারভিন, লুৎফর রহমান জর্জ, আনিসুর রহমান, শামীম হোসেন, মমিন বাবু এবং জাহিদ হাসান নিজে। এছাড়াও প্রতিটা অভিযানে যুক্ত হবেন ভিন্ন ভিন্ন শিল্পী।
রাজু একজন দূর্ধষ প্রতারক। বিভিন্ন ভাবে বিভিন্ন মানুষকে ঠকিয়ে তাদের কাছ থেকে টাকা আতœসাৎ করাই ওর লক্ষ। রাজু নামের পাশাপাশি সাইদুল ইসলাম, আরেফিন আহমেদ, ইসতিয়াক আহমেদ, আবুল কাসেম ইত্যাদি নানান নাম বিভিন্ন সময়ে ব্যবহার করে সে। এমনকি এইসব নামের ভিজিটিং কার্ড এবং আইডি কার্ডও সে সংগ্রহ করে রেখেছে। নিজের কাজের সুবিধার জন্য সে কখনো পুলিশ, কখনো উকিল, কখনো ডাক্তার, কখনো ভিক্ষুক, কখনো রিক্সাওয়ালা, কখনো সচিব, কখনো মন্ত্রীর পিএস আবার কখনো ম্যাজিস্টেটের রূপ ধরে। সবধরণের পোষাক আষাকই আছে তার স্টকে। পোষাকের সাথে সামঞ্জস্য বিভিন্ন গেটআপ নেয়ায়ও পারদর্শি সে। জানে বিভিন্ন অঞ্চলের আঞ্চলিক ভাষা। সময় এবং সুযোগ বুঝে যা ব্যবহার করে। কখনো অতি বোকা কখনো অতি চালাক এবং কখনো সিজনাল পাগল সাজে। কখনো গোফ ওয়ালা, কখনো গোফ ছাড়া, চুল-দাঁড়ি পরিবর্তন সহ বিভিন্ন গেটাফে দেখা যায় তাকে। এমনকি কানা-খোঁড়া বা প্রতিবন্দিও সাজতে হয় প্রয়োজন মতো। প্রচন্ড বুদ্ধিমান একজন প্রতারক হওয়ায় আজ পর্যন্ত বড় ধরণের কোন বিপদে পড়তে হয়নি। দু একবার পুলিশের হাতে ধরা পড়লেও বুদ্ধির কারণে কৌশলে ঠিকই পার পেয়ে যায়।
রাজুর প্রতারণার একটা ধরণ বা বিশেষত্ব আছে। আর তা হল সে কখনো কোন সৎ লোকের সাথে প্রতারণা করে না। সহকারীদের সহযোগীতায় খুঁজে খুঁজে সমাজের অসৎ এবং অন্যায় ভাবে প্রতিষ্ঠিত লোকদের তথ্য যোগার করে তাদের অবৈধ টাকা হাতিয়ে নেয়াই ওর লক্ষ।