আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে ইউএনওকে মারপিটের অভিযোগ

গ্যালারী নিউজ জাতীয় বাংলাদেশ

ফেনী প্রতিনিধি:

ফেনীর পরশুরাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এইচ এম রকিব হায়দার আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের মারধোরে আহত হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। তবে আওয়ামী লীগ নেতারা এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। আহত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এইচ এম রকিব হায়দারকে ফেনী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আওয়ামী লীগ নেতা ও উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, নৌ-পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান আজ সকালে বিলোনীয়া স্থলবন্দর পরিদর্শন ও একটি সমাবেশে অংশ নিতে পরশুরাম যাচ্ছিলেন। এ জন্য মন্ত্রীকে অভ্যর্থনা জানাতে ইউএনও রকিব হায়দার ও আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা ফেনী-পরশুরাম সড়কের ধনি কুণ্ড এলাকায় অপেক্ষায় ছিলেন। মন্ত্রী ঘটনাস্থলে আসার আগে স্থানীয় একটি কিন্ডারগার্টেন স্কুলের উদ্বোধন করেন। সেখানে মন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি খায়রুল বাশার মজুমদার তপন ও তার অনুসারীরা অপেক্ষা করছিলেন। ওই অনুষ্ঠানে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ নেতাদের সঙ্গে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রকিব হায়দারের কথাকাটাকাটি হয়। ওই ঘটনার জেরে ধনি কুণ্ড এলাকায় ইউএনও এবং আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীরা আবার বিবাদে জড়িয়ে পড়েন। একপর্যায়ে আওয়ামী লীগ নেতারা ইউএনওকে মারধর করে আহত করেন।

জেলা প্রশাসক মো. আমিন উল আহসান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, খবর পেয়ে প্রশাসনের কর্মকর্তারা ইউএনও রকিব হায়দারকে উদ্ধার করে পরশুরাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখান থেকে পরে রকিব হায়দারকে ফেনী সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এ ঘটনায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানান জেলা প্রশাসক।

তবে ইউএনওকে মারধরের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি খাইরুল বাশার মজুমদার তপন প্রথম আলোকে বলেন, আহত হওয়ার খবর পেয়ে তিনি ইউএনওর শারীরিক খোঁজ-খবর নিতে হাসপাতালে গেছেন। তবে কারা হামলা করেছে তা তিনি জানেন না বলে দাবি করেছেন।